• ঢাকা
  • |
  • শনিবার ১৯শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বিকাল ০৪:১৬:২১ (03-Dec-2022)
  • - ৩৩° সে:

সুস্থ থাকতে প্রতিদিন কলা খান, জেনে নিন কলার উপকারিতা


সোমবার ২১শে নভেম্বর ২০২২ দুপুর ০২:০৩



সুস্থ থাকতে প্রতিদিন কলা খান, জেনে নিন কলার উপকারিতা

ছবি সংগৃহীত

আপনি যদি স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে থাকেন তাহলে আপনি নিশ্চয়ই জানেন যে কলা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ঠিক কতটা গুরুত্বপূর্ণ। আর কেন আমাদের প্রতিদিন একটি বা দুটি করে কলা খাওয়া অত্যন্ত প্রয়োজন ?

কলার মধ্যে প্রচুর পরিমানে পুষ্টি সংরক্ষিত রয়েছে এবং নানারকম রোগকে প্রতিরোধ করতে পারে। কলার মধ্যে এতো এতো উপকারিতার কথা জেনে আপনি অবাকই হবেন। কারন বেশকিছু মেডিকেল গবেষণায় দেখা গেছে যে, কলায় মধ্যে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যেগুলো আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী। আর যেগুলো আপনার শরীরে দারুন কিছু পরিবর্তন আনতে পারে, যদি আপনি প্রতিদিন নিয়মিত কলা খেয়ে থাকেন।

তো আজকে এই আর্টিকেলে আমি বেশ কিছু মেডিকেল গবেষণার ফলাফল তুলে ধরবো। যা আমি মনে করি একজন স্বাস্থ্য সচেতন মানুষ হিসেবে আপনার জানা প্রয়োজন। জেনে নিন কলার বহুগুণ-

কোষ্ঠকাঠিন্যে কার্যকরী কলা | কাঁচা কলার উপকারিতা

যারা কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগছেন তাদের জন্য কলা খুব ভালো একটি ঔষধ হতে পারে। কারন এটা আপনার কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে খুবই কার্যকরী। এক মেডিকেল গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, কলায় একধরনের ফাইবার রয়েছে যা আপনার মলকে নরম করতে সাহায্য করে। যদি আপনার কোষ্ঠকাঠিন্য এর সমস্যা থেকে থাকে তাহলে আপনি গুরুত্ব সহকারে নিয়মিত কলা গ্ৰহন করতে পারেন।

কাঁচা এবং পাকা উভয় কলার মধ্যেই প্রচুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে। বিশেষ করে কাঁচা কলা আপনার জন্য অত্যন্ত উপকারী হবে যদি আপনি কোষ্ঠকাঠিন্যোর মত সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে চান। কোষ্ঠকাঠিন্যে কাঁচা কলার উপকারিতা অপরিসীম।

হজম শক্তিকে বাড়িয়ে দিতে কলা একটি ঔষধ হতে পারে

একটি মেডিকেল গবেষণায় দেখা গেছে যে, কলাতে এমন ধরনের কার্বোহাইড্রেট রয়েছে যা আপনার হজম শক্তিকে বাড়িয়ে দিতে পারে। অথবা এটা একপ্রকার ঔষধ হতে পারে। আপনি যদি এমন কোন ব্যক্তি হয়ে থাকেন যার খাবার দাবার ভালো হজম হয়না। আপনি অনেক ধরনের খাবার হজম করতে পারেন না, তাহলে আপনার জন্য কলায় থাকা কার্বোহাইড্রেট খুবই গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে।

আপনি প্রতিদিন কাঁচা কলা রান্না করে খাবারের সাথে খেতে পারেন। আর এতে কলার কার্বোহাইড্রেট আপনার হজম শক্তিকে শক্তিশালী করতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

হাই ব্লাড প্রেসারে হেল্পফুল কলা

একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, কলাতে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম রয়েছে যা আপনার ব্লাড প্রেসারকে কমিয়ে দিতে পারে। এছাড়াও আরও একটি চমকপ্রদ খবর হচ্ছে, কলার মধ্যে প্রচুর পরিমানে ম্যাগনেশিয়াম রয়েছে। প্রতিদিন আমাদের শরীরে যে পরিমাণ ম্যাগনেশিয়াম প্রয়োজন হয় তার প্রায় ৮% আমরা একটি কলা থেকে পেতে পারি।

আপনার রক্ত চাপের জন্য, উচ্চ কোলেস্টরেল এর জন্য, এছাড়াও নানাবিধ সমস্যার জন্য ম্যাগনেশিয়াম আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত উপকারী। তাই আপনি যদি একজন হাই ব্লাড প্রেসার রোগী হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য কলা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি খাবার হতে পারে।

ওজন কমাতে অত্যন্ত কার্যকরী কলা

যদি আপনি ওয়েট কমাতে চান তাহলে কলা আপনার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে। কারন কলার মধ্যে যেই কার্বোহাইড্রেট রয়েছে সেটা হজম করাটা অনেক সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। যখন আপনি কলা গ্ৰহন করবেন সেটা আপনাকে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত অন্য খাবার গ্ৰহন করা ছাড়াই হেলদি থাকতে সাহায্য করবে। আপনার খুদাকে কমিয়ে রাখতে সাহায্য করবে।

যাদের অতিরিক্ত ওজন রয়েছে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় তারা অনেক বেশি ঘন ঘন খুদা অনুভব করেন। এর ফলে তারা অনেক বেশি খাবার গ্ৰহন করেন। ফলস্বরূপ তারা দিন দিন আরও বেশি মোটা হয়ে যায়। কিন্তু যদি আপনি কলার মতো খাবার গ্ৰহন করেন তাহলে এটা আপনাকে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত অন্য খাবার গ্ৰহন করা ছাড়াই খাবারের দিক থেকে সেটিসফাইড থাকতে সাহায্য করবে। খুদা নিবারণ করতে সাহায্য করবে।

দূষণের ক্ষতি থেকে বাঁচায় কলা | কলা খাওয়ার উপকারিতা

কলা খুবই এন্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ একটি খাবার। সারাদিন আপনার শরীরে দূষণ থেকে যে পরিমাণ ক্ষতি হয়, এর ফলে শরীরে অনেক সেল ড্যামেজ হয়। ফলস্বরূপ আপনি শরীরের মধ্যে ব্যাথা অনুভব করেন এবং শরীরে দুর্বলতা অনুভব করেন। এতে করে শরীরের মধ্যে বড় ধরনের রোগ হওয়ার ঝুঁকি বাড়তে থাকে। এই সমস্যা গুলো আপনি অনেকটাই কাটিয়ে উঠতে পারবেন শুধু নিয়মিত কলা গ্ৰহন করার মাধ্যমে।

কারন কলাতে প্রচুর পরিমাণে নানারকম এন্টি অক্সিডেন্টের সংরক্ষণ রয়েছে। যা আপনার এই ড্যামেজকে প্রতিরোধ করতে সক্ষম। এছাড়াও এই এন্টি অক্সিডেন্ট আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক দিক থেকে অনেক বেশি উপকারী। তো যদি আপনি আপনার শরীরকে এইসব রোগ থেকে নিরাপদ রাখতে চান তাহলে আপনার উচিত হবে আপনার খাদ্য তালিকায় কলাকে যোগ করা।

কোলন ক্যান্সার প্রতিরোধে কলা | কলা খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা

যদি আপনার কোলন ক্যান্সার এর সমস্যা থেকে থাকে তাহলে আপনি আজ থেকেই গুরুত্ব সহকারে নিয়মিত কলা খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। কারন একটি গবেষণায় ফল বলছে, নিয়মিত কলা গ্ৰহন করলে এটা আপনার কোলন ক্যান্সার এর ঝুঁকি অনেকটা কমিয়ে দেয়। এজন্য রেগুলার নিয়মিত কলা গ্ৰহন করতে হবে।

হার্টের জন্য কলা অত্যন্ত উপকারী | পাকা কলা খাওয়ার উপকারিতা

কলা আপনার হার্টকে সুস্থ করার জন্য অত্যন্ত সহায়ক একটি মেডিসিন হতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে যে, কলাতে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম রয়েছে যা হার্টের রোগকে সাড়ানোয় জন্য এটা অত্যন্ত কার্যকরী। এছাড়াও গবেষণায় আরও দেখা গিয়েছে যারা প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম গ্ৰহন করে তাদের হার্টের রোগ হবার ঝুঁকি অন্যদের তুলনায় ২৭% কম। যদি আপনার হার্টের রোগ থেকে থাকে বা স্ট্রোকের ঝুঁকি থাকে তাহলে আপনার জন্য পটাশিয়ামের পরিমাণ বৃদ্ধি করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য নিয়মিত কলা গ্ৰহন করুন এবং হার্টকে সুস্থ রাখুন।

কিডনির স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে কলা | কলা খাওয়ার নিয়ম

মানবদেহে কিডনির গুরুত্ব অপরিসীম। আর এই কিডনির স্বাস্থ্যের জন্য কলায় থাকা পটাশিয়াম অত্যন্ত উপকারী। একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, কিডনির স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে পটাশিয়াম খুবই কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। তবে হ্যাঁ যদি আপনি কিডনি রোগী হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার ডক্টরের সাথে পরামর্শ করে খাবারের পটাশিয়ামকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

কারন যাদের কিডনি রোগ হয়েছে তাদের ক্ষেত্রে পটাশিয়ামের লেভেলটাকে নিয়ন্ত্রণ করে গ্ৰহন করতে হয়। আপনার শরীরে প্রতিদিন যে পরিমাণ পটাশিয়াম প্রয়োজন তার প্রায় ১০% আপনি একটি মাঝারি সাইজের কলা থেকেই পেতে পারেন।

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য অত্যন্ত উপকারী কলা | কাঁচা কলা খাওয়ার উপকারিতা

কাঁচা কলা বিশেষ করে ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য অত্যন্ত উপকারী হতে পারে। এজন্য ডায়াবেটিস রোগীরা যদি সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন কাঁচা কলা রান্না করে খেতে পারে, তাহলে এর দ্বারা তারা ভালো উপকারিতা পেতে পারে। যেহেতু ডায়াবেটিস রোগীদের খাবারের তালিকা কিছুটা লিমিট থাকে সেহেতু চেষ্টা করবেন কাঁচা কলাকে আপনার খাবারের তালিকায় রাখতে।

রাতে কলা খাওয়ার উপকারিতা | সকালে কলা খাওয়ার উপকারিতা

অনেকেই প্রশ্ন করেন যে, রাতে কলা খাওয়ার উপকারিতা অথবা সকালে কলা খাওয়ার উপকারিতা কি ? আসলে সকালে বা রাতে কলার উপকারিতা বলতে গেলে প্রায় একই। তেমন কোন ব্যবধান নেই।

কলা খাওয়ার নিয়ম | কলা খাওয়ার সঠিক নিয়ম

কলা খাওয়ার সঠিক নিয়ম বলতে এটা আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী গ্ৰহন করবেন। তবে সাধারণ নিয়ম অনুযায়ী আপনি প্রতিদিন সকাল বিকাল দুটি করে কলা খেতে পারেন।

যেহেতু কলা অনেক দিক থেকেই আমাদের জন্য উপকারী এবং তেমন একটা ব্যয়বহুল না। সেহেতু আপনার খাদ্য তালিকায় নিয়মিত কলাকে রাখতে পারেন। উপরে বলা এত এত উপকারিতা আপনি তখনই পাবেন যখন আপনি নিয়মিত কলা খেতে থাকবেন।

মন্তব্য করুনঃ


সর্বশেষ সংবাদ