• ঢাকা
  • |
  • বৃহঃস্পতিবার ৫ই বৈশাখ ১৪৩১ রাত ১১:৩৫:১৫ (18-Apr-2024)
  • - ৩৩° সে:

পর্যটকদের সেন্টমার্টিন ছাড়ার নির্দেশ

চ্যানেল এস ডেস্ক: দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে সেন্টমার্টিনে ভ্রমণে যাওয়া দেড় হাজারের বেশি পর্যটককে দ্বীপ ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। এরইমধ্যে দ্বীপজুড়ে মাইকিং করা হয়েছে এবং বিচকর্মী এবং ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে সব হোটেল-মোটেল ও রিসোর্ট কর্তৃপক্ষকেও এ বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে। সোমবার (২৩ অক্টোবর) দুপুর দেড়টায় এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আদনান চৌধুরী। আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি সামান্য উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি সোমবার দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৭৫৫ কি.মি. পশ্চিম-দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৭১৯ কি.মি. পশ্চিম-দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৬৩০ কি.মি. দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৬৩০ কি.মি. দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর ও ঘনীভূত হতে পারে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালা সৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। আর চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে এক নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ০৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আদনান চৌধুরী বলেন, ‘দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া বা সতর্ক সংকেত প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে পর্যটকবাহী জাহাজসহ সব ধরনের ট্রলার ও স্পিডবোট চলাচল বন্ধ থাকবে। যেসব পর্যটক সেন্টমার্টিন ভ্রমণে গেছে তাদের সোমবারের ফিরতি জাহাজগুলোতে টেকনাফ ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এজন্য দ্বীপে মাইকিং করা হয়েছে এবং বীচ কর্মী ও ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে সব হোটেল-মোটেল ও রিসোর্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। যাতে দ্বীপে অবস্থান করা পর্যটকরা বিকেল ৩টার মধ্যে ফিরতি জাহাজে উঠে যায়। জাহাজ মালিক সমিতির সূত্রে জানা গেছে, সেন্টমার্টিন দ্বীপে এক হাজার ৫০০ জনের বেশি পর্যটক অবস্থান করছে। তারা ৩টি পর্যটকবাহী জাহাজে করে টেকনাফ ফিরবেন। সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান বলেন, ‘পর্যটকদের দ্বীপ ছাড়ার জন্য টেকনাফ উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশে মাইকিং করা হয়েছে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে হয়তো ২-৩ দিন জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকবে। এরইমধ্যে বেশির ভাগই পর্যটক দ্বীপের জেটিতে অবস্থান করছে জাহাজে ওঠার জন্য। ৩টি জাহাজ বিকেল ৩টায় সব পর্যটক নিয়ে টেকনাফের উদ্দেশ্যে রওনা হবে। আর দ্বীপে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিপাত হচ্ছে, সাগর কিছুটা উত্তাল ও আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে।’