• ঢাকা
  • |
  • শনিবার ১৯শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ দুপুর ০২:২৭:৫৯ (03-Dec-2022)
  • - ৩৩° সে:

চাকরি হারানো দুদক কর্মকর্তা শরীফ উদ্দিন সামলাচ্ছেন ভাইয়ের দোকান


বুধবার ৯ই নভেম্বর ২০২২ বিকাল ০৩:১৯



চাকরি হারানো দুদক কর্মকর্তা শরীফ উদ্দিন সামলাচ্ছেন ভাইয়ের দোকান

ফাইল ফটো

চাকরিচ্যুত দুদক কর্মকর্তা শরীফ উদ্দিন কোথাও চাকরি না পেয়ে ভাইয়ের দোকান সামলাচ্ছেন, এমন খবরে তাকে চাকরি দিতে এগিয়ে আসছেন কেউ কেউ। ইতোমধ্যে ফেসবুকে পোস্টসহ নানাভাবে তাকে দেয়া হচ্ছে চাকরির অফার। 

চট্টগ্রাম ষোলশহর স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে একটি মাঝারি আকারের কনফেকশনারি (দোকান)। সেই দোকানে ক্যাশিয়ার হিসেবে যিনি আছেন, তিনি দুদকের সাবেক উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) শরীফ উদ্দিন। মুদি দোকানদারি করে বর্তমানে সংসার চালাচ্ছেন দুদকের এক সময়ের দাপুটে কর্মকর্তা। গণমাধ্যমে এমন সংবাদ প্রকাশ হয় সম্প্রতি। যা সাড়া ফেলে পুরো দেশজুড়ে। 

এমন পরিস্থিতিতে শরীফের পাশে দাঁড়াতে এগিয়েও আসছেন কেউ কেউ। চট্টগ্রামের আলহাজ্ব শামসুল হক ফাউন্ডেশন। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার কর্ণধার শরীফকে তাদের প্রতিষ্ঠানের প্রোপোজাল ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার পদে নিয়োগ দিতে আগ্রহী উল্লেখ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে জানানোর পাশাপাশি সরাসরি যোগাযোগও করেন শরীফের সঙ্গে। 

আলহাজ্ব শামসুল হক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মুহাম্মদ নাছির উদ্দীন বলেন, আমরা মনে করি ওনাকে পেলে, তার চেয়ে আমাদের ফাউন্ডেশন বেশি উপকৃত হবে। ওনার যে যোগ্যতাটুকু আছে তার কিছুটা যদি আমরা কাজে লাগাতে পারি। হাইকোর্টের রিট অনুযায়ী তিনি চাকরি ফিরে পেলে সেখানে জয়েন করবেন।

জীবনের এমন খারাপ সময়ে নিজের পাশে দাঁড়ানোর এই প্রস্তাবে আশাবাদী শরীফ উদ্দিনও। এ ব্যাপারে তাদের সঙ্গে মঙ্গলবার কথাও বলেছেন তিনি। মানুষের এমন ভালোবাসায় আপ্লুত তিনি। এ ব্যাপারে চিন্তা ভাবনা করে সিদ্ধান্ত নেয়ার কথা বলেছেন চাকরিচ্যুত দুদক কর্মকর্তা শরীফ উদ্দিন। 

রোহিঙ্গা এনআইডি জালিয়াতি, কক্সবাজারের বড় বড় প্রকল্পের দুর্নীতিসহ চাঞ্চল্যকর তথ্য বের করে এনেছিলেন তিনি। দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে মামলার পাশাপাশি কয়েকজনকে গ্রেপ্তারও করেছিলেন। পরে রাঘববোয়ালের রোষানলে পড়ে চাকরি হারানোর গল্পটা তো সবারই জানা। কোথাও চাকরি না পেয়ে সেই শরীফ উদ্দিন এখন ভাইয়ের দোকান সামলাচ্ছেন।

এর আগে দুদকের সাবেক উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) বলেন, ‘আমি এখনো আশায় আছি চাকরিটা ফিরে পাব। কারণ, আমি তো কোনো অন্যায় করিনি। গত ৯ মাস ধরে মানবেতর জীবনযাপন করছি। সবখানে চাকরির জন্য গিয়েছি, কিন্তু কেউ চাকরি দেয়নি। এমন অবস্থায় আমার ভাই বলল, আলাদা করে দোকানে ক্যাশিয়ার রাখার দরকার কী? তুমি দোকানে সময় দাও। সেই থেকে এখন পর্যন্ত দোকানেই সময় দিচ্ছি।’

শরীফ তার মেয়াদকালে বিভিন্ন খাতে অনিয়মের খবর প্রকাশের জন্য আলোচিত হন। তিনি প্রায় সাড়ে ৩ বছর দুদকের চট্টগ্রাম সমন্বিত কার্যালয়ে কর্মরত ছিলেন। সে সময় এনআইডি সার্ভার ব্যবহার করে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি ভোটার করার অভিযোগে ২০২১ সালের জুনে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) একজন পরিচালক, ৬ কর্মীসহ আরও ১০ জনের বিরুদ্ধে তিনি মামলা করেছিলেন। এ মামলার পরপর ২০২১ সালের ১৬ জুন তাকে চট্টগ্রাম থেকে পটুয়াখালীতে বদলি করা হয়। পরে চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি দুদকের চাকরি বিধিমালা ৫৪ এর ২ ধারায় কমিশনের চেয়ারম্যানের একক ক্ষমতাবলে শরীফ উদ্দিনকে চাকরিচ্যুত করা হয়। সে সময় বিষয়টি নানা প্রশ্নের জন্ম দেয়।

শরীফকে অপসারণের আদেশ প্রত্যাহার এবং ২০০৮ সালের দুর্নীতি দমন কমিশন (কর্মচারী) বিধিমালার ৫৪ (২) বিধি বাতিলের দাবিতে তার সহকর্মীরা দুদকের প্রধান কার্যালয়সহ কমিশনের অন্যান্য দপ্তরে মানববন্ধন করেন, যা নজিরবিহীন।

এরপর চাকরি ফেরত চেয়ে ২৭ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালয়ে আবেদন করেন শরীফ। দুর্নীতি দমন কমিশন চাকরি বিধিমালা-২০০৮ এর ৪৮ বিধি অনুযায়ী অপসারণের আদেশ পুনঃনিরীক্ষা করে অপসারণের আদেশ প্রত্যাহার করার আর্জি জানানো হয় সেখানে।

শরীফ ২০১১ সালে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টর অব ভেটেরিনারি মেডিসিন পাস করেন। ২০১৪ সালে তিনি দুদকে যোগদান করেন।

সাড়ে সাত বছরের চাকরিজীবনের প্রথম ছয় বছরই বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদনে (এসিআর) শরীফ উদ্দিনকে দুদকের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা ‘অতি উত্তম’ হিসেবে মূল্যায়ন করে। তাকে তদন্তকাজে ‘অভিজ্ঞ’ এবং ‘উদ্যমী ও দক্ষ কর্মকর্তা’ হিসেবে উল্লেখ করেছে দুদক।

মন্তব্য করুনঃ


সর্বশেষ সংবাদ