• ঢাকা
  • |
  • শনিবার ১৫ই মাঘ ১৪২৯ সকাল ১০:১৩:০৮ (28-Jan-2023)
  • - ৩৩° সে:

ইউক্রেনকে ট্যাংক দেয়া নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্বেই স্পষ্ট যে, রাশিয়াকে ভয় পেয়েছে ন্যাটো: ক্রেমলিন


মঙ্গলবার ২৪শে জানুয়ারী ২০২৩ দুপুর ০২:২৪



ইউক্রেনকে ট্যাংক দেয়া নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্বেই স্পষ্ট যে, রাশিয়াকে ভয় পেয়েছে ন্যাটো: ক্রেমলিন

সংগৃহীত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

সময় মতো সমরাস্ত্র সরবরাহ না করা নিয়ে পশ্চিমা বিশ্বের ওপর আগেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ইউক্রেন। নতুন করে এবার দেশটিকে ট্যাংক সরবরাহ করা নিয়ে দেখা দিয়েছে জটিলতা। আর এ সুযোগেরই ফায়দা লুটেছে রাশিয়া। ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ইউক্রেনকে ট্যাংক সরবরাহ করা নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্ধেই স্পষ্ট যে রাশিয়াকে ভয় পেয়েছে ন্যাটো জোট। খবর ডেইলি মেইলের।

এ নিয়ে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলছেন, রাশিয়াকে ভয় পেয়েছে ন্যাটো জোট। ইউক্রেনকে ট্যাংক সরবরাহ করা নিয়ে তাদের দ্বিধা-দ্বন্দ্বই তা স্পষ্ট করে। তিনি আরও বলেন, আমরা তো শুরু থেকেই বলে আসছি এটা পশ্চিমের একটা ছায়া যুদ্ধ। এরইমধ্যে এটা হাইব্রিড যুদ্ধ থেকে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। ইউক্রেনে বেসামরিকদের যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তার জন্য দায়ী শুধুমাত্র কিয়েভ। পশ্চিমা উস্কানিতে পা দিয়েছে তারা। আমরাই আলোচনার জন্য সব সময় আহ্বান জানিয়ে আসছি।

এদিকে, ইউক্রেনকে ট্যাংক সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত এখনো বাতিল করা হয়নি বলে দাবি জার্মানির। দেশটির মুখপাত্র স্টেফান হেবেস্ট্রেইট বলেন, আমরা কখনোই ইউক্রেনকে ট্যাংক সরবরাহের সিদ্ধান্ত বাতিল করিনি। শুধুমাত্র কিছু বিষয় নিয়ে সমন্বয় এবং সমঝোতা চলছে। কারণ আমরা চাই না বেপরোয়া কিংবা অযাচিত কোনো সিদ্ধান্ত নিতে, যাতে পরে পস্তাতে হয়। আমরা আগেও বলেছি আবারও বলছি, কিয়েভকে অস্ত্র সরবরাহ করতে বদ্ধ পরিকর বার্লিন।

তবে আসল পরিস্থিতি হলো, সময় যত গড়াচ্ছে, ইউক্রেনকে ট্যাঙ্ক সরবরাহ করা নিয়ে জটিলতা বাড়ছেই ততই। একদিকে চুক্তির বাধা, অন্যদিকে রুশ হুঁশিয়ারি। ফলে কিয়েভের কাছে লেপার্ড-টু ট্যাংক পৌঁছাবে কিনা তা নিয়ে সংশয় কাটেনি এখনও।

এদিকে, ইউক্রেনে ট্যাংক সরবরাহ ইস্যুতে বিতর্কের মধ্যেই পোল্যান্ডকে মিসাইল সিস্টেম সরবরাহ করতে শুরু করেছে জার্মান সামরিক বাহিনী। এরইমধ্যে দেশটিতে পৌঁছেছে প্যাট্রিয়ট আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার একটি স্কোয়াড্রন। ফলে ইউক্রেনে ট্যাংক সরবরাহ নিয়ে নতুন করে দেখা দিয়েছে শঙ্কা। আর এ দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ও জটিলতার মধ্যেই দোনেৎস্কের আরও দুটি এলাকা দখলে নিয়েছে রুশ বাহিনী।

মন্তব্য করুনঃ


সর্বশেষ সংবাদ