• ঢাকা
  • |
  • শুক্রবার ১১ই ফাল্গুন ১৪৩০ সকাল ০৯:০২:৫২ (23-Feb-2024)
  • - ৩৩° সে:

বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ ২ ছাত্রদল কর্মী গ্রেপ্তার


বুধবার ২৭শে ডিসেম্বর ২০২৩ বিকাল ০৩:১৮



বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ ২ ছাত্রদল কর্মী গ্রেপ্তার

ছবি: সংগৃহীত

চ্যানেল এস ডেস্ক: 

রাজধানীর কদমতলী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে বিপুল সংখ্যক ককটেল, পেট্রোল বোমা ও ককটেল তৈরির সরঞ্জামসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। 

গ্রেপ্তাররা হলেন-মো. নয়ন (২২) ও আলামিন (২৩)। তারা ছাত্রদল কর্মী বলে জানিয়েছে র‍্যাব। 

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (২৬ ডিসেম্বর) রাতে রাজধানী ঢাকার কদমতলী থানাধীন শ্যামপুর পালপাড়া মন্দির রোড এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-১০ একটি দল। 

এ সময় তাদের কাছ থেকে ১৩টি ককটেল, ১৫টি পেট্রোল বোমা, গান পাউডার, কাচের গুড়া, ২টি কেঁচি ও ৭টি স্কচটেপ উদ্ধার করা হয়। 

বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক (পরিচালক) অ্যাডিশনাল ডিআইজি মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন জানান, গত ২৮ অক্টোবর থেকে নির্বাচন বানচাল করার উদ্দেশ্যে বিএনপির নেতাকর্মীরা অবরোধের নামে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বাস, ট্রাক, সিএনজি, লেগুনা, অ্যাম্বুলেন্সসহ বিভিন্ন পরিবহন ভাঙচুর ও ককটেল নিক্ষেপ/দাহ্য পদার্থ দিয়ে বাসে অগ্নিসংযোগ করে। এছাড়া আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বেশ কয়েকজন সদস্যদের ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে ও লাঠিসোঁটা দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। 

এমনকি গত ২৮ অক্টোবর তাদের নারকীয় তাণ্ডবে একজন পুলিশ কনস্টেবলকে লাঠিসোঁটা দিয়ে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যাসহ সারাদেশে ব্যাপক নাশকতা শুরু করে। ওই ঘটনার পর র‌্যাব গত ২৮ অক্টোবর থেকে সারাদেশে চলমান বাস, ট্রাক, সিএনজি, লেগুনা, অ্যাম্বুলেন্স, ট্রেইনসহ বিভিন্ন পরিবহন ভাঙচুর/অগ্নিসংযোগ ও নাশকতার পরিকল্পনাকারীসহ জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি ও ছায়া তদন্ত শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় অভিযান পরিচালনা করে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার নয়ন ও আলামিন উভয়ই ছাত্রদলের কর্মী। 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন বলেন, গ্রেপ্তার নয়ন ও আলামিন স্থানীয় বিএনপি ও যুবদলের নেতাদের নির্দেশে নাশকতার উদ্দেশ্যে পেট্রোল বোমা ও ককটেল তৈরি করে তাদের চাহিদামতো বিভিন্ন সময়ে সরবরাহ করে আসছিল। 

জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায়, এর আগে তারা সেলিম রেজা ও আলমগীর হোসেনের নেতৃত্বে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, সায়েদাবাদ, ধোলাইপাড়, গোলাপবাদ, ডেমরা, দনিয়া ও কদমতলীসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় নাশকতা করে আসছিল। এছাড়াও গ্রেপ্তার নয়নের বিরুদ্ধে রাজধানীর কদমতলী থানায় নাশকতা, চুরি ও মারামারির একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানা যায়। গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। 

মন্তব্য করুনঃ