• ঢাকা
  • |
  • শুক্রবার ২৫শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯ সন্ধ্যা ০৭:৩৫:৪৩ (09-Dec-2022)
  • - ৩৩° সে:

আফরান নিশো-মেহজাবিনসহ ছয়জনকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ


বুধবার ১৬ই নভেম্বর ২০২২ বিকাল ০৫:২২



আফরান নিশো-মেহজাবিনসহ ছয়জনকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ

ছবি সংগৃহীত

অভিনেত্রী  আফরান নিশো ও অভিনেতা মেহজাবিন চৌধুরীসহ ছয়জনকে হাজির হতে সমন জারি করেছেন আদালত।

‘ঘটনা সত্য’ নাটকে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ও প্রতিবন্ধিতা সম্পর্কে ‘নেতিবাচক’ শব্দ ব্যবহার করার অভিযোগে করা রিভিশন মামলায় তাদের আদালতে হাজির হওয়ার জন্য এ সমন জারি করা হয়।

বুধবার (১৬ নভেম্বর) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক আছাদুজ্জামান রিভিশন মামলা গ্রহণ করে আসামিদের আগামী বছরের (২৫ এপ্রিল) আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, বার্তাপ্রধান শাইখ সিরাজ, চিত্রনাট্যকার মঈনুল সানু ও পরিচালক রুবেল হাসান।

বাদীপক্ষের আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট আল মামুন রাসেল বিষয়টি গণমাধ্যমে নিশ্চিত করেছেন।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা শুনানিতে মহানগর দায়রা জজ আদালতকে বলেছি যে, ম্যাজিস্ট্রেট তার আদেশে বলেছেন নাটকের ডায়ালগে সরাসরি প্রতিবন্ধীদের হেয় করার কোনো বক্তব্য নেই। অথচ প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন ২০১৩-এর ৩৭ ধারায় বলা আছে, প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রতিবন্ধীদের নিয়ে নেতিবাচক ও ভ্রান্ত ধারণা প্রদান করলেই এ অপরাধ হবে। যাহা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত উপেক্ষা করেছেন।

অ্যাডভোকেট আল মামুন রাসেল আরও বলেন, তদন্ত কর্মকর্তা নিজেই স্বীকার করেছেন বিবাদীরা কাজটা করেছেন। কিন্তু নাটক তৈরির সময় তাদের ধারণা ছিল না। এটা অপরাধ হবে এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষমাও চেয়েছেন। এর দ্বারা বোঝা যায়, অপরাধ প্রমাণিত। কিন্তু আইনে অজ্ঞতা কখনও অজুহাত হিসেবে গণ্য হয় না। সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষমা চাইলেও তা দিয়ে আইনের শাস্তি এড়ানোর সুযোগ নেই। আদালত রিভিশন মামলাটি গ্রহণ করে আসামিদের আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেন। আগামী বছরের ২৫ এপ্রিল সমনের জবাব দাখিলের জন্য দিন ধার্য করেছেন। আমরা আদালতের আদেশে সন্তুষ্ট।

এর আগে চলতি বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রহমান সিদ্দিকীর আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন মামলার তদন্ত সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

প্রসঙ্গত, গত (৩১ অক্টোবর) বাদী নারাজি দিলে আদালত তা নামঞ্জুর করে মামলার দায় থেকে আসামিদের অব্যাহতি দেন। এরপর এ আদেশের বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত রিভিশন মামলা করেন।

চাইল্ড ফাউন্ডেশনের পক্ষে নাবিলা আক্তার এ মামলা করেন। আদালত শুনানি শেষে মামলাটি পিবিআইকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মন্তব্য করুনঃ


সর্বশেষ সংবাদ